Header Ads

বাংলাদেশি হিন্দু বাঙালির সঙ্গে বসবাস করতে আপত্তি নেই অসমিয়া হিন্দুদেরঃ রেল প্রতিমন্ত্রী রাজেন গোঁহাই

 লামডিং (অসম)- বাংলাদেশ থেকে আসা হিন্দু বাঙালিদের সঙ্গে বসবাস করতে আপত্তি নেই অসমিয়া হিন্দুদের। বলেছেন রেল প্রতিমন্ত্রী রাজেন গোঁহাই। লামডিং বিবেকানন্দ রেলওয়ে স্টেডিয়ামে সোমবার বহু প্রতীক্ষিত ১৩৬ কোটি টাকা ব্যয় সাপেক্ষে ডেমু শেডের শিলান্যাস করতে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। ডেমু শেডের শিলান্যাস অনুষ্ঠানের পর নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সংক্রান্ত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, “বিল সম্পর্কে কতিপয় ব্যক্তি মিথ্যা অপপ্ৰচার চালিয়েছেন। এরা রাজ্যের মানুষকে বিপথে পরিচালিত করছেন। অসমে কোনও বহিরাগতকে নতুন করে স্থান দেওয়ার জন্য আইন প্রবর্তন করা হচ্ছে না। নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতে একেবারে পরিচ্ছন্ন মনেগড়া মিথ্যা কথা প্রচার করা হচ্ছে। যে সকল হিন্দু আগে থেকে অসমে বসবাস করছেন, কেবল তাঁদেরই স্থায়ীভাবে বসবাসের ব্যবস্থা করতে নাগরিকত্ব আইন সংশোধন বিল পাশ করা হচ্ছে।” তিনি আরও বলেন, “অনেকে সংখ্যালঘু ধৰ্মীয় ভোট নিজেদের পক্ষে আনার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন। এরা বোঝেও বুঝতে চাইছেন না, হিন্দু বাংলাদেশি বিতাড়ন করলে আখেরে অসমিয়া জাতিই একদিন নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। তাছাড়া আরও একটি চক্র অতি সক্রিয় হয়ে উঠেছে, যারা বাংলাদেশি মুসলমানদের পক্ষাবলম্বন করে এখানকার হিন্দুদের মধ্য ভ্রাতৃঘাতী সংঘর্ষ বাঁধাতে চাইছে। চক্রটির অ্যাজেন্ডা, হিন্দুদের দুৰ্বল করতে পারলে তাঁরা শক্তিশালী হয়ে উঠবে৷ এমন দক্ষতা দর্শাতে গিয়ে এ ধরনের কাজে লিপ্ত হয়েছে একাংশ দল, সংগঠন ও ব্যক্তি৷ এদের একটিই লক্ষ্য, নিজেদের ভোট ব্যংক প্রসারিত করো৷”নগাঁওয়ের সাংসদ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজেন বলেন, অসমের মানুষ অত্যন্ত সজাগ এবং সচেতন। তাই অখিল গগৈ অ্যান্ড কোম্পানির উসকানিতে বিভ্রান্ত না হয়ে সদ্যসমাপ্ত পঞ্চায়ত নির্বাচনে দুহাতে বিজেপিকে জয়ী করেছেন রাজ্যের আমজনতা। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধাচরণ করতে গিয়ে সাম্প্রতিককালে মুখ্যমন্ত্রী-সহ বিজেপি নেতাদের কালো কাপড় প্ৰদৰ্শন সংক্রান্ত ঘটনাবলি সম্পর্কে মন্ত্রীর বক্তব্য, এ সব ঘটনা হাতেগোনা মুষ্ঠিমেয় কয়েকজন সংঘটিত করছে। এর পিছনে রাজনীতির প্রভাব বেশি, আমজনতার সমর্থন নেই, এ ধরনের কাজে অসমের আমজনতা জড়িত নন। বাংলাদেশ থেকে আগত হিন্দুদের সঙ্গে সহবাস করতে অসমিয়া হিন্দুদের কোনও আপত্তি নেই বলেও তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন রাজেন গোহাঁই। লামডিঙে এদিন ১৩৬ কোটি টাকা ব্যয়সাপেক্ষে ডেমু শেড এবং কোচিং ডিপোর শিলান্যাস করেছেন রেল প্রতিমন্ত্রী রাজেন গোহাঁই৷ লামডিঙে নিৰ্মীয়মাণ কোচিং টাৰ্মিনালের পাশাপাশি দুটি পিট লাইন, পাঁচটি স্টেবলিং, একটি শাটিং ন্যাক, তিনটি চিক লাইন এবং চারটি মেকানিক্যাল ও ইলেক্ট্ৰিক শেড তৈরি হবে৷
 সৌজন্য : হিন্দুস্থান সমাচার

No comments

Powered by Blogger.