Header Ads

একই দিনে এন আর সিতে লক্ষ লক্ষ মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়েছে


গুয়াহাটিঃ জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর দাবি আপত্তি জানাবার সময়সীমা গতকাল ৩১ ডিসেম্বর রাত ১২টায় শেষ হয়ে গেছে। গত ৩০ ডিসেম্বর পৰ্যন্ত মাত্ৰ ৭০০ মানুষ আপত্তি জানিয়েছিল। কিন্ত অবাক করার কথা গতকাল শেষ দিনে প্ৰায় ১ লক্ষ এ্যপ্লিকেশন রিসিভ নম্বর (এআরএন)এর বিপরীতে লক্ষ লক্ষ মানুষের নামে আপত্তি জানানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সব থেকে বেশি অভিযোগ করা হয়েছে বরপেটা জেলায়, তারপর মরিগাঁও জেলায় সেখানে প্ৰায় ৩৪ হাজার এআরএন-র বিপরীতে প্ৰায় ৬০-৭০ হাজার মানুষের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। নগাঁও জেলায় প্ৰায় ৩৭ হাজার, বঙ্গাইগাঁও ২ হাজার, চিরাংয়ে ৫ হাজার, করিমগঞ্জ, কাছাড় প্ৰভৃতি জেলাতেও আপত্তি জানানোর খবর পাওয়া গেছে। এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘এ্যসোসিয়েশন ফ'র সিটিজেনস রাইটস'এর সভাপতি আব্দুল বাতিন খন্দকার আজ আশ্চৰ্য প্ৰকাশ করে বলেছেন, গত দুদিন আগে পৰ্যন্ত যেখানে ৭০০ আপত্তি জানানো হয়েছিল সেক্ষেত্ৰে গতকাল মাত্ৰ ১ দিনেই লক্ষ লক্ষ মানুষের আপত্তি কি ভাবে সম্ভব হল? তিনি সন্দেহ প্ৰকাশ করেন, এন আর সি কৰ্তৃপক্ষ এবং জেলা প্ৰশাসনের সহযোগিতা ছাড়া একই দিনে লক্ষ লক্ষ মানুষের বিরুদ্ধে আপত্তি জানানো কোনো পৰ্যায়েই সম্ভব নয়। সভাপতি জানান, এস ও পির ৩.২ ধারা অনুযায়ী এবং ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব সংশোধনীর ১৭ ধারা প্ৰযোজ্য হবে। এই ধারায় বলা হয়েছে জেনে শুনে অসত্য কথা বলা হলে শাস্তি হবে। শাস্তি হলে ৫ বছর পৰ্যন্ত জেল এবং ৫০ হাজার টাকা পৰ্যন্ত জরিমানা বা দুটিই হতে পারে। যদি শাস্তির অভিযোগ উঠে তবে অভিযোগকারী সহজেই বলতে পারেন, ইচ্ছাকৃতভাৱে কোনও অভিযোগ করা হয় নি এই কথা বলে শাস্তির অভিযোগ থেকে নিজেদেরকে বাঁচানোর অবকাশ রয়েছে। সাধারণত বাংলাভাষী হিন্দু-মুসলিম সংখ্যালঘু মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.