Header Ads

ডিফুতে নিজ কন্যাকে ধৰ্ষণ করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত


সঙ্গীতা ভৌমিক দাস, 
ডিফুঃ নিজ ১৬ বছরের কন্যাকে ধৰ্ষণ করার অভিযোগে ডিফুর সেছন কোৰ্টের বিচারপতি আমির উদ্দিন আহমেদ আজ ধন বাহাদুর দৰ্জী নামের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ঘোষণা করার সাথে ৫ হাজার টাকার জরিমানার আদেশ দেন। উল্লেখযোগ্য যে গত ২০১৫ সালের ১২ মাৰ্চ' তারিখে কাৰ্বি আংলং জেলার খেরণি থানার অন্তৰ্গত জিরিম বরহল গ্ৰামের দেবুমায়া দেবী নামের এক মহিলা পশ্চিম কাৰ্বি আংলং জেলার খেরণি থানায় এক এজাহার দিয়ে জানিয়েছিলেন যে ২০১৫ সালের ৪ মাৰ্চ' তারিখে তিনি শিলডুবিস্থিত বড় মেয়ের ঘরে গিয়েছিলেন এবং তিনি নাথাকার সুযোগ নিয়ে সে রাতেই তাঁর স্বামী ধন বাহাদুর দৰ্জী ভয় দেখিয়ে বলপূৰ্বক ভাবে তাঁদের ১৬ বছরের কন্যাকে ধৰ্ষণ করে। দেবুমায়া দেবী কদিন পর বড় মেয়ের ঘর থেকে নিজ গৃহে ফিরে আসার পর ধৰ্ষিতা কন্যার থেকে ঘটনার বিষয়ে জনতে পেয়ে থানায় এজাহার দেন। এই এজাহারের ভিত্তিতে খেরণি থানা ভারতীয় দণ্ডবিধি আইনের ৩১৬ (2) (এফ) ধারা এবং পকসো আইনের ছনং ধারায় একটি অভিযোগ দায়ের করে ধন বাহাদুর দৰ্জীকে গ্ৰেপ্তার করে। ডিফুর ন্যায়িক আদালত মামলাটির বিচার প্ৰক্ৰিয়ায় ধন বাহাদুর দৰ্জীকে নিজ নাবালিকা কন্যাকে ধৰ্ষণ করার যথেষ্ট তথ্য প্ৰমাণ পেয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং পাঁচ হাজার টাকার জরিমানা আদায়ের আদেশ দেয়। সে মামলাটির সরকারী পক্ষের হয়ে পা¿ব্লক প্ৰসিকিউটার দিলীপ কুমার ডেকা যুক্তি প্ৰদৰ্শন করার বিপরীতে অভিযুক্তের হয়ে যুক্তি প্ৰদৰ্শন করেন অধিবক্তা অৰ্ণব দত্ত। আদালত নিৰ্যাতিতা মেয়েটির উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দিতেও জেলা আইন সেবা প্ৰাধিকরণকে নিৰ্দেশ দেয়। 

No comments

Powered by Blogger.