Header Ads

বাজপেয়ীর জন্ম দিনে ২৫ ডিসেম্বর প্ৰধানমন্ত্ৰী বগিবিল সেতু উদ্বোধন করবেন

নিৰ্বাচন কমিশনার অকপটে স্বীকার করলেন ভুল-ভ্ৰান্তি হয়ে গেছে, পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনে ভোট পড়েছে ৬৫.প্ত শতাংশ, হাজার হাজার ভোটার ভোটদানে বঞ্চিত

অমল গুপ্তঃ গুয়াহাটি
অসমের বহু প্ৰত্যাশিত পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনের প্ৰথম পৰ্যয়ের ১৬ টি জেলার নিৰ্বাচন নান  অভিযোগ, ত্ৰুটি-বিচ্যুতির মধ্যে সম্পন্ন হল। হাজার হাজার ভোটার ভোটদান থেকে বঞ্চিত হন। ব্যালট পেপার, এবং দলীয় প্ৰতীক অদল-বদল হয়েছে। দ্বিতীয় পৰ্যায় নিৰ্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৯ ডিসেম্বর। আর যে কেন্দ্ৰগুলিতে নানা কারণে ভোট দান করা সম্ভব হয়নি সেই কেন্দ্ৰগুলির ভোট দান হবে আগামী ৭ ডিসেম্বর। ৯ ডিসেম্বরের আগে পৰ্যন্ত নিৰ্বাচনীর আগাম সমীক্ষা, ফলাফল ঘোষণার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। আজ পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনে ভোট পড়েছে ৬৫.৫ শতাংশ। পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনের পর রাজ্য নিৰ্বাচন কমিশনার হরেন্দ্ৰ নাথ বরা সাংবাদিক সন্মেলন ডেকে রাজ্যের নিৰ্বাচনে নানা  ত্ৰুটি-বিচ্যুতির কথা অকপটে স্বীকার করে নিয়ে বলেন, বার বার পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনের তারিখ ঘোষণা, ভোটার তালিকা সংশোধন, এন আর সির উদ্ভূত পরিস্থিতি এই সব নানা কারণে নানা ত্ৰুটি-বিচ্যুতি হয়েছে। বেলা ৩টা পৰ্যন্ত ভোট পড়েছে ৬৫.৫ শতাংশ। আরও ১০ শতাংশর মতো বৃদ্ধি হতে পারে। পুনরায় কয়েকটি কেন্দ্ৰে ভোট গ্ৰহণের পর সামগ্ৰীকভাবে ভোট ৭০ শতাংশে দাঁড়াবে। তিনি জানান, লখিমপুর, গহপুর, তিতাবর, শিবসাগর, যোরহাট প্ৰভৃতি জায়গায় দু-তিনটি করে কেন্দ্ৰে পুনরায় নিৰ্বাচন হবে। যোরহাটের এক পোলিং অফিসারের মৃত্যু হয়েছে। রহার এক পোলিং অফিসারকে সরিয়ে দেওয়া হয়। কমিশনার বরা জানান, গত পঞ্চায়েত নিৰ্বাচনে ৭৬ শতাংশ ভোট পড়েছিল। ভোটাররা ভোটদান থেকে বঞ্চিত হয়েছে এই অভিযোগ সম্পৰ্কে বলেন, ভোটের দিন অভিযোগ করা হচ্ছে ভোটার তালিকায় নাম নেই। এই স্বল্প সময়ের মধ্যে নাম অন্তৰ্ভুক্ত করা যায় না। আজকের ১৬ টি জেলায় নিৰ্বাচনে ৯২ লক্ষ ১৯ হাজার ৯৩৮ জন ভোটার ছিলেন। প্ৰাৰ্থীর সংখ্যা ৪৩ হাজার ৫১৫ জন। ফলাফল ঘোষণার আগেই বিনা প্ৰতিদ্বন্দ্বিতায় নিৰ্বাচিত হয়েছেন ৪৪২ জন, তারমধ্যে বিজেপির ২৫০ জন, কংগ্ৰেসের ১০৬ জন, অগপর ১৫ জন, এআইইউডিএফ-এর ৩ জন, নিৰ্দলীয় এবং অন্যান্য ৬৫ জন প্ৰাৰ্থী। আজ গোলাঘাটের হাবিয়াল প্ৰাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্ৰে জ্ঞানেন্দ্ৰ রাজখোয়া নামে বিএসএফ-এর প্ৰাক্তন কৰ্মী ভোট কেন্দ্ৰে হাতে দা নিয়ে ভোটারদের হঠাৎ আক্ৰমণ করে বসে। পুলিশ গুলি চালালে সেই ব্যক্তি নিহত হয়। ঐ কৰ্মীর দা'য়ের আঘাতে ৪-৫ জন আহত হয়েছেন। বিশ্বনাথ চারআলিতে চা বাগানের শ্ৰমিকরা ব্যালট বাক্স থেকে ব্যালট পেপার বার করে জ্বালিয়ে দেয়। পুলিশকে লাঠি চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্ৰণ করতে হয়। সেই কেন্দ্ৰে পুনরায় নিৰ্বাচনের কথা ঘোষণা করেছে নিৰ্বাচন কমিশনার। ভুল ব্যালট পেপার সরবরাহের অভিযোগে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ভোটাররা বৈধ নথিপত্ৰ দাখিল করা সত্বেও ভোটদান থেকে বঞ্চিত হয়। শোণিতপুর জেলার বালিপাড়ায় ৫০০ জন বঞ্চিত হয়েছে, বিহপুরিয়ায় ৩০০ জন, কামপুরে ১৫০ জন, দুলীয়াজান ২০০ জন, মন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মার নিৰ্বাচন কেন্দ্ৰ জালুকবাড়িতে ১০৭ জন, খুমটাই ২০০ জন, ঢেকিয়াজুলি শতাধিক এবং আমচাং গ্ৰাম পঞ্চায়েতে ৪০০ নাম নেই। ভোটার তালিকায় নাম নাথাকা আরও বহু কেন্দ্ৰের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধিংয়ের সরু রাধা আটিতে কংগ্ৰেসের সঙ্গে বিরোধীর প্ৰচণ্ড মারপিট হয়। আজকের নিৰ্বাচনে অধিকাংশ জায়গায় ব্যালট পেপার অদল বদলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কংগ্ৰেসের জায়গায় বিজেপি, বিজেপির জায়গায় কংগ্ৰেস। দলীয় প্ৰতীক নিয়েও বহু অভিযোগ উঠেছে। দ্বিতীয় পৰ্যায়ের নিৰ্বাচনের জন্য মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল বরাক উপত্যকায়, মন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা নিম্ন অসমে এবং এআইইউডিএফ প্ৰধান বদরুদ্দিন আজমলও তীব্ৰভাবে প্ৰচারাভিযান চালায়। হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা আজ পুনরায় কড়া ভাষায় আক্ৰমণ করে বলেন, অগপর পবিন্দ্ৰ ডেকার মতো মানুষকে বিজেপি টিকিট দিয়ে ঐতিহাসিক ভুল করেছিল। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী প্ৰফুল্ল কুমার মহন্তের বিরুদ্ধেও গুপ্তহত্যার অভিযোগ করেন। বদরুদ্দিন সাহেবের বিরুদ্ধে বোতলে ফুঁ দিয়ে ঝাড় ফুঁক করে ভোটারদের আকৰ্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। আজ ভোটের দিনই প্ৰধান মন্ত্ৰী নরেন্দ্ৰ মোদি আগামী ২৫ ডিসেম্বর, প্ৰাক্তন প্ৰধানমন্ত্ৰী অটল বিহারী বাজপেয়ীর জন্মদিনে বগিবিলে রোড কাম রেল ব্ৰীজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করে নিৰ্বাচন বিধি ভংগ করেছেন বলে কংগ্ৰেস সভাপতি রিপুন বরা অভিযোগ করেছেন। তিনি নিৰ্বাচন কমিশনারের কাছে অভিযোগ দায়ের করবেন বলে জানিয়েছেন।

No comments

Powered by Blogger.