Header Ads

৩০ ডিসেম্বর আন্দামানে একইসঙ্গে প্রকাশ হবে ডাকটিকিট ও নেতাজি স্মরণে এবার মোদির চমক ৭৫ টাকার বিশেষ কয়েন



লোকসভা ভোটের আগে নেতাজিকে হাতিয়ার করতে চাইছেন নরেন্দ্র মোদি। বলা ভালো, আষ্ঠেপৃষ্ঠে আঁকড়ে ধরতে চাইছেন তিনি। সেই লক্ষ্যে আগামী ৩০ ডিসেম্বর নেতাজির আজাদ হিন্দ সরকা
রের ৭৫ তম বর্ষপূর্তিকে দেশের মানুষের কাছে আরও স্মরণীয় করে রাখতে ৭৫ টাকা মূল্যের একটি কয়েন আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী। কেবল কয়েনই নয়, অন্তত তিনটি বিশেষ ডাকটিকিটও ওইদিন দেশবাসীর সামনে আনার কথা তাঁর। ওইদিনটি বেছে নেওয়ার যথেষ্ট কারণও রয়েছে। ৭৫ বছর আগে এই ৩০ ডিসেম্বরেই আন্দামান দ্বীপপুঞ্জকে ব্রিটিশ কবল মুক্ত করে তৎকালীন জাপান সরকার নেতাজির হাতে তুলে দিয়েছিল। সেদিন সুভাষচন্দ্র আন্দামানের নতুন নাম দিয়েছিলেন ‘শহিদ স্বরাজ দ্বীপ’। সেখানে আজাদ হিন্দ সরকারের পতাকা উত্তোলন করেছিলেন এই বরেণ্য স্বাধীনতা সংগ্রামী। মোদি এই ইতিহাসকে জাতির সামনে আরও একবার তুলে ধরতে ওইদিন নিজে আন্দামান গিয়ে দেড়শো ফুটের পতাকা উত্তোলন সহ কয়েন ও ডাকটিকিট প্রকাশ করবেন।

পরাধীন বা স্বাধীন ভারতে এর আগে ৭৫ টাকা মূল্যের কোনও নোট বা কয়েন বাজারে আসেনি। এই প্রথম সেই দৃষ্টান্ত স্থাপন হতে চলেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের সূত্রের খবর, ৩৫ গ্রাম ওজনের এই কয়েনটি রূপো, পিতল ও সীসার সংমিশ্রণে তৈরি। কয়েনে আজাদ হিন্দ সরকারের পতাকা ও নেতাজির ছবি থাকার কথা। নেতাজি স্মরণের পাশাপাশি নতুন বছরের উপহার হিসেবে মোদি সরকার এই কয়েনটি দেশের মানুষের কাছে তুলে ধরতে চাইছে। ডাক টিকিটের দাম অবশ্য ৭৫ টাকা করতে চাইছে না সরকার। কারণ, ওই মূল্যের ডাক টিকিট সচরাচর সাধারণ মানুষের কাজে লাগে না। তাই অন্তত তিন-চারটি বিভিন্ন মূল্যের ডাকটিকিট প্রকাশের পরিকল্পনা করা হয়েছে। তবে সব মিলিয়ে ওই ডাকটিকিটগুলির মূল্য ৭৫ টাকাই দাঁড়াবে। ডাক টিকিটগুলিতেও অনুরূপ ছবি থাকার কথা রয়েছে।

জানা গিয়েছে, ৩০ তারিখ প্রধানমন্ত্রীর আন্দামান সফরে ঠাসা কর্মসূচি রয়েছে। সকালের দিকে তিনি একটি দ্বীপে কোনও অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। তারপর বিকেলের মুখে পোর্ট ব্লেয়ারে হবে পতাকা উত্তোলন সহ মূল অনুষ্ঠান। সন্ধ্যায় তিনি যোগ দেবেন একটি দলীয় জনসভায়। মাস চারেকের মধ্যে নেতাজির বাহিনীর হাত থেকে পুনরায় এই দ্বীপপুঞ্জকে নিজেদের কব্জায় আনে ব্রিটিশ শাসকরা এবং ফের তার নাম রাখে আন্দামান। নেতাজির পরিবারের একটি অংশ সহ বিভিন্ন মহল থেকে দাবি উঠেছে, ৩০ তারিখ মোদি আন্দামানের নাম ফের শহিদ স্বরাজ দ্বীপ হিসেবে ঘোষণা করুন। তাহলেই এই দেশনায়ককে শ্রেষ্ঠ সম্মান জানানোর বৃত্তটি পূর্ণ হবে। তবে এনিয়ে স্থানীয় কিছু মানুষের নাকি আপত্তি রয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে খবর এসেছে। ব্রিটিশদের কব্জা থেকে মুক্ত হওয়ার পর সেখানকার অধিবাসীদের উপর জাপানিরাও অত্যাচার চালিয়েছিল বলে তাদের অভিযোগ। তাছাড়া নাম পরিবর্তন নিয়ে একাধিক মতামত এসেছে কেন্দ্রের কাছে। তাই বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর সংশ্লিষ্ট অনেকের সঙ্গে কথাবার্তা চালাচ্ছে। তবে এখানেই কেন্দ্রের নেতাজি-নৈবেদ্য থেমে থাকছে না। আগামী ২৩ জানুয়ারি লালকেল্লায় তাঁর নামে একটি মিউজিয়ামেরও উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। সেইসঙ্গে কেন্দ্রীয় পুলিস বাহিনীর জন্য নেতাজির নামে তিনটি পদক দেওয়ার কথাও ওইদিন ঘোষণা করবেন তিনি।

বর্তমান-এর সৌজন্যে

No comments

Powered by Blogger.