Header Ads

রূপম ডিব্রাগেডের উপর প্রানঘাতী হামলা চালানোর ঘটনার দুই মাষ্টার মাইন্ড পুলিশের জালে উদ্ধার পিস্তল


বিপ্লব দেবঃ হাফলং
ডিমা হাসাও জেলার শৈল শহর হাফলঙের খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের ইন্সপেক্টর রূপম ডিব্রাগেডের উপর প্রানঘাতী হামলা চালানোর মাষ্টার মাইন্ড বাবু ছেত্রী ও ইবুইম কুয়ামেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় ডিমা হাসাও পুলিশ। শনিবার প্রকাশ্য দিবালোকে হাফলং কলেজ রোডস্থিত খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের কার্যালয়ে ঢুকে এক দূষ্কৃতীকারী খাদ্য ও অসামরিক যোগান বিভাগের ইন্সপেক্টর রূপম ডিব্রাগেডেকে লক্ষ্য করে শূন্য দূরত্ব থেকে দুই রাউন্ড গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায়। দুটি গুলি গিয়ে বিঁধে রূপম ডিব্রাগেডের বুকের বাদিকে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রূপম ডিব্রাগেডেকে হাফলং সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হলে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ার দরুন রাতেই তাকে গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তরিত করা হয়। এদিকে এই ঘটনার পর পরই শনিবার রাতেই দক্ষিণ আসাম রেঞ্জের ডিআইজি দেবোরাজ উপাধ্যায় হাফলং এসে উপস্থিত হন। তবে রূপম ডিব্রাগেডের উপর শনিবার বিকেলে প্রানঘাতী হামলা হওয়ার পরই পুলিশসুপার প্রশান্ত শইকীয়ার নেতৃত্বে হাফলং পুলিশ দ্রুতগতিতে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করে এবং সাত আট ঘন্টার মধ্যেই অভিযান চালিয়ে শনিবার রাতে এই ঘটনার সংঘঠিত করার মাষ্টার মাইন্ড বাবু ছেত্রী ও ইবুইম কুয়ামেকে গ্রেফতার করার পাশাপাশি যে ৭-৬৫ পিস্তল দিয়ে গুলি চালানো হয় রূপম ডিব্রাগেডের উপর সেই পিস্তলটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তবে এই হামলায় যে ভাড়াটে সুটারকে ব্যবহার করা হয় সেই সুটারকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ রবিবার দুপুরে হাফলং পুলিশের অতিথিশালায় দক্ষিণ আসাম রেঞ্জের ডিআইজি দেবরাজ উপাধ্যায় সাংবাদিক সন্মেলন করে বলেন শনিবারের এই হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত মাষ্টার মাইন্ড ফেয়ার প্রাইস দোকানে মালিক লোয়ার হাফলং কাশীপুরের বাসিন্দা বাবুছেত্রী ও তার সহযোগী হাফলং শহরের পার্শ্ববর্তী লোদী গ্রামের বাসিন্দা ইবুইম কুয়ামে ডিমাপুর থেকে ১ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ভাড়াটে সুটার এনে এই ঘটনা সংঘঠিত করে। ডিআইজি বলেন কেন বাইরে থেকে সুটার এনে খাদ্য ও অসামরিক বিভাগের একজন ইন্সপেক্টরের উপর প্রানঘাতী হামলা চালানো হল এনিয়ে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তাছাড়া এই ঘটনায় যে সুটারকে ব্যবহার করা হয়েছে তার খোজে অভিযান চলছে। ডিআইজি সাংবাদিক সন্মেলনে আরো বলেন শুক্রবার মাইবাং মহকুমার ওয়াজাও গ্রাম থেকে বিশিষ্ঠ ব্যবসায়ী পবিত্র নুনিসার বাবা পাইনসোডাও নুনিসাকে অপহরন করে নিয়ে যায় সন্দেহভাজন দূষ্কৃতীকারীরা এর ও তদন্ত অনেকটা এগিয়েছে অবিলম্বে পুলিশ ওই ব্যাক্তি উদ্ধার করতে সক্ষম হবে তবে তদন্তের স্বার্থে এর চেয়ে বেশী কিছু জানাতে রাজি হননি ডিআইজি। এদিকে রূপম ডিব্রাগেডের উপর আক্রমনের ঘটনার পর হাফলং পুলিশ যেভাবে ক্ষিপ্রতার সঙ্গে এই ঘটনার তদন্ত করে দোষীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে এর জন্য ডিআইজি দেবরাজ উপাধ্যায় হাফলং পুলিশকে ধন্যবাদ জানান। ডিআইজি সাংবাদিক সন্মেলনে বলেন ডিমা হাসাও জেলায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি যখন অনেকটা উন্নতি হয়েছে সে সময় কোন দুষ্টচক্র আইনশৃঙ্খলা বিনষ্ট করার চেষ্টা করে তাহলে এই দুষ্টচক্রের বিরূদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এধরনের দুষ্টচক্র যাতে সমাজের কোন ক্ষতি করতে না পারে তারজন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন ডিআইজি দেবরাজ উপাধ্যায়। এদিন সাংবাদিক সন্মেলনে অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশসুপার প্রশান্ত শইকীয়া ও অতিরিক্ত পুলিশসুপার পুষ্পরাজ সিং।

No comments

Powered by Blogger.