Header Ads

পোর্টল্যান্ড ও বাস হারবার সফর

 পোর্টল্যান্ড  হেডল্যাম্প
বাস হারবার
 আশীষ কুমার দে, সমরসেট (নিউ জার্সি)-১৩ অক্টোবর স্কারবরো ম্যরিয়টে, আমার ৬৩তম জন্মদিন হোটেলের লাউঞ্জে পালন করে বেড়িয়ে পড়লাম মেইন রাজ্যের সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয় পোর্টল্যান্ড হারবার। আজকের তাপমাত্রা মাত্র তিন ঝিরঝিরে বৃষ্টি হচ্ছে, হোটেলে বসে সময় নষ্ট না করে রওনা হলাম। একঘন্টা কম সময়ে পৌঁছে গেলাম ফোর্ট উইলিয়াম ন্যাশনাল পার্ক, পৌঁছে দেখি প্রতিকূল আবহাওয়া থাকা সত্ত্বেও পর্যটকদের ভিড়। রেনকোট, উইন্ডচীটার ও ছাতা মাথায় সবাই হাঁটছেন লাইট হাউসের উদ্দেশ্যে। ৭০ একর জমিতে তৈরি ফোর্ট উইলিয়াম ন্যাশনাল পার্ক, ১৭৮৭ সালে জর্জ ওয়াশিংটন, এর নির্দেশে এই ঐতিহাসিক দূর্গ ও সেইসঙ্গে বন্দর নির্মাণ করা হয়। এর ভৌগলিক অবস্থান মেইন রাজ্যের কেপ এলিজাবেথ এলাকায়, প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সময় এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বন্দর ছিল। এখানে চার শতাধিক পুরনো লাইট হাউস যা এখনও পর্যন্ত সক্রিয়। এর নাম পোর্টল্যান্ড হেডল্যাম্প, দর্শনীয় এই আলোকস্তম্ভটিকে দেখতে প্রতি বছর প্রচুর পর্যটকের ভিড় হয়। এই লাইট হাউস দেখতে বেশিরভাগ পর্যটক বিখ্যাত ক্লীফ ট্রেল যা সমুদ্রের সমান্তরাল ও তিন মাইল লম্বা পথ পাড়ি দিয়ে পৌঁছন, আমরা অবশ্য সেই অ্যাডভেঞ্চার পথে পা বাড়াইনি পার্কিং এ গাড়ি রেখে অল্প হেঁটে হেঁটে চলে এলাম সমুদ্রের ধারে। পাথরের উঁচু ত্রিভুজের ঠিক কোনায় হেডল্যাম্প, দুপাশে আটলান্টিকের জলোচ্ছ্বাস, মেঘলা আকাশ ও আলোর অভাবে ফটোগ্রাফি আশানুরূপ হলনা তবে মনের আশা পূর্ণ হল। বছর তিনেক আগে ন্যাশনাল জিওগ্র্যফীর চ্যানেলে দেখেছিলাম পোর্টল্যান্ড ও অটাম ফল। এই পার্কের মধ্যে আছে গোডার্ড ম্যানসন, নামে একটি দূর্গ, আমেরিকার সিভিল ওয়ার এর সময় কর্নেল জন গোডার্ড এর নির্মাণ করেন। একটি অংশের ছাদ ধ্বংস হলেও উঁচু দেয়ালগুলি এখনো সংরক্ষিত। এই পুরো পার্কটি ঘুরে দেখার জন্য আছে পুরনো ট্র্যামকার, এটি বর্তমানে ডিজেল চালিত ও নিউম্যাটিক চাকায় চলে। বলে রাখা ভালো মেইন রাজ্য নিউ ইংল্যান্ড বা উত্তরপূর্ব আমেরিকার শেষ প্রান্তে অবস্থিত, এর একদিকে আটলান্টিক মহাসাগর অন্যদিকে কানাডার ব্রান্সউইক ও যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার। নিউ ইংল্যান্ড এর সবচেয়ে বড় রাজ্য হলেও এর জনসংখ্যা খুবই কম, সংরক্ষিত বনাঞ্চলে পরিমাণ ৮৩%, এই রাজ্যের বৈশিষ্ট্য তার পাথুরে মাটি, বিস্তৃত তটিনী, খাড়া পাহাড় ও এর সামুদ্রিক ইতিহাস। বৃহৎ পরিসরে একাডিয়া ন্যাশনাল পার্ক, বাস হারবার ও বার হারবার, গ্র্যনাইট ও স্প্রুস আইল্যান্ড। এই রাজ্যের বর্তমান রাজধানী অগস্টা হলেও সমৃদ্ধশালী শহর হচ্ছে পোর্টল্যান্ড, এর আরও একটি প্রচলিত নাম আছে পাইন ট্রি স্টেট। মেইন রাজ্য খাদ্য রসিকদের স্বর্গ, এখানের বিখ্যাত লবষ্টার ও ক্ল্যাম ( বিশাল আকারের চিংড়ি ও শামুক) না খেয়ে কেউ ফেরেনা। একেকটি চিংড়ির ওজন ১কেজির ও বেশী হয়। মেইনের ব্লুবেরী পাই ও বিখ্যাত। পোর্টল্যান্ড থেকে আমরা চললাম বাস হারবার এর সূর্যাস্ত দেখতে। এখানে একটি লাইট হাউসের পাশে দাঁড়িয়ে সূর্যাস্ত দেখতে অসংখ্য পর্যটক ভিড় করেন। প্রায় দুইঘন্টা গাড়ি চালিয়ে আমরা পৌঁছলাম বাস হারবার, রাস্তার দুপাশে গাছের রং, বাধ্য করছে দাঁড়িয়ে উপভোগ করতে। দুধারের বনে যেন প্রকৃতি নিজের খেয়ালে লাল, কমলা, হলুদ ও খয়েরি রং ছিটিয়ে দিয়েছে। আমরা বেছে নিয়েছি একটু ঘোরা পথ যা ছোট ছোট শহরতলি ও গ্রামের মাঝ দিয়ে পৌঁছে যাবে মাউন্ট ডেসার্ট দ্বীপে। এখানেই আছে বাস হারবার হেড লাইটহাউস। আমাদের দুর্ভাগ্য আকাশ মেঘলা থাকায় আমরা পুরো সূর্যাস্ত দেখতে পেলাম না। যাই হোক এখন সন্ধ্যা হয়ে আসছে আমাদের ফিরতে হবে স্কারবরো, সেখানে রাত কাটিয়ে পরদিন সকালে যাব একাডিয়া ন্যাশনাল পার্ক দেখতে।

No comments

Powered by Blogger.