Header Ads

বাঙালি-অসমিযা সম্পর্কে বিষবাস্প ছড়াবেন না, আলফার কাছে স্বনির্বন্ধ অনুরোধ

 কান্দি জেল রোডের ৮৯তম দুৰ্গাপুজো
মুৰ্শিদাবাদের কান্দি থেকে অমল গুপ্ত
বাঙালি-অসমিয়া জনগোষ্ঠীর বৃহত্তম দুৰ্গোৎসব এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে ভারতের আন্তৰ্জাতিক ক্ৰিকেট টুৰ্নামেন্টের সময় বাংলাদেশ, চিন প্ৰভৃতি দেশে আত্মগোপন করে থাকা দেশ বিরোধী, সংবিধান বিরোধী আলফা’র স্বঘোষিত কমান্ডার-ইন-চিফ পরেশ বরুয়া গুয়াহাটি মহানগরের প্ৰাণ কেন্দ্ৰ, অসমের ব্যবসার স্নায়ু কেন্দ্ৰের ব্যস্ততম ফ্যান্সি বাজারের কাছে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে রীতিমতো গুয়াহাটি টিভি চ্যানেল গুলিতে টেলিফোন করে দাবি করলেন উদ্বাস্তু বাঙালিদের বিরুদ্ধে তাদের এই প্ৰতিবাদ। তিনি একবারও ভাবলেন না কলকাতা, বেঙ্গালুরু দিল্লি প্ৰভৃতি শহরে লক্ষ লক্ষ অসমিয়া মানুষ দুৰ্গোৎসবের সময় যান এবং নিরুপদ্ৰবে উৎসবে অবগাহন করেন। এবার আমি কলকাতা এবং পশ্চিমবঙ্গের এক শহরে বসে দেখলাম এবং উপলব্ধি করলাম অসম থেকে আসা অসমিয়া জনগোষ্ঠীর মানুষের মধ্যে এক অজানা ভয় ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। অসমের সংবাদপত্ৰ এবং টিভি চ্যানেলগুলি বে-আইনি সংগঠন আলফার কমান্ডার-ইন-চিফ পরেশ বরুয়ার বোমা বিস্ফোরণকে নিন্দা তো করলই না, বরং বাঙালি উদ্বাস্তুদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হল। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধাচরণ করতে গিয়ে সমগ্ৰ বাঙালির বিরুদ্ধেই বিষোদ্গার করল, বাঙালি জাতিকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দিল। গুজরাতের এক সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্ৰ করে সেখানে অগুজরাতিদের বিতারণ করা হচ্ছে। গুজরাতে কাজ করতে গিয়ে বরপেটা সহ নিম্ন অসমের কয়েক হাজার শ্ৰমজীবী মানুষ অসম ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছে। আলফার বিশৃঙ্খলতার কারণে অসমিয়া-বাঙালি সম্পৰ্কে যাতে কোনও চিড় না ধরে তা আমাদের সুনিশ্চিত করতে হবে। অসমে যুগ যুগ ধরে অসমিয়া ও বাঙালি মানুষ পাশাপাশি সদভাবের সঙ্গে বসবাস করছে। অসমের আৰ্থিক সামাজিক উন্নয়নে বাঙালির যথেষ্ট অবদান রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মানুষ হিসাবে আমাকে অসমবাসী যথেষ্ট সম্মান দিয়েছে। অসমিয়া মানুষের সঙ্গে আমার শ্ৰদ্ধার সম্পৰ্ক। প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী প্ৰফুল্ল কুমার মহন্ত, হিতেশ্বর শইকিয়া, তরুণ গগৈ এবং বৰ্তমান মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়ালের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত শ্ৰদ্ধার সম্পৰ্ক রয়েছে।  দীৰ্ঘ তিন দশকের বেশি আমার সাংবাদিকতা জীবনে আলফাকে এমন দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিতে দেখিনি। আলফা নাগরিকত্ব সংশোধনি বিলের বিরুদ্ধাচরণ করুক তাতে আমার বিন্দুমাত্ৰ আপত্তি নেই। তবে তার বিরুদ্ধাচরণের নামে সমগ্ৰ বাঙালি জাতিকে কাঠগড়ায় দাঁড় করাবেন না আলফার আলোচনা বিরোধিতার কাছে আমার স্বনিৰ্বন্ধ অনুরোধ। অসমের বাঙালি সংগঠনগুলির কাছেও আমার একই অনুরোধ এমন কিছু করবেন না যাতে অসমিয়া-বাঙালির মধ্যে পরম্পরাগত সম্পৰ্কে চিড় ধরে। চলতি দুৰ্গোৎসবে অসমবাসীকে জানাই অন্তরিক প্ৰীতি ও শুভেচ্ছা, আলফার শুভবুদ্ধির উদয় হোক এই প্ৰাৰ্থনা ও রইল।  

2 comments:

  1. অসমীয়া আৰু বাঙালী একই মুদ্ৰাৰ দুই পিঠি। সহাৱস্থান দুয়োৰে উন্নীত সূচাব। আমাৰ ফেমিলিত তিনি গৰাকী বোৱাৰী অসমীয়া ছোৱালী আৰু দুটা জোঁৱাই অসমীয়া। আহক আমাৰ মিলাপ্ৰীতি অটুট ৰাখোঁ। জয় আই অসম। জয় মা দুৰ্গা।

    ReplyDelete
  2. অসমীয়া আৰু বাঙালী একই মুদ্ৰাৰ দুই পিঠি। সহাৱস্থান দুয়োৰে উন্নীত সূচাব। আমাৰ ফেমিলিত তিনি গৰাকী বোৱাৰী অসমীয়া ছোৱালী আৰু দুটা জোঁৱাই অসমীয়া। আহক আমাৰ মিলাপ্ৰীতি অটুট ৰাখোঁ। জয় আই অসম। জয় মা দুৰ্গা।

    ReplyDelete

Powered by Blogger.