Header Ads

‘মি টু’ বিতর্কে এককাট্টা হলেন দেশের মহিলা চিত্র পরিচালকরা


নয়া ঠাহর প্ৰতিবেদন, মুম্বইঃ ‘মি টু’ বিতর্কে এককাট্টা হলেন সারা দেশের ১১ জন মহিলা চিত্র পরিচালক। যাঁদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ উঠছে, দোষ প্রমাণিত হলে তাঁদের সঙ্গে কোনও সিনেমা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা। যে মহিলা চিত্র পরিচালকেরা একযোগে এই সিদ্ধান্ত নিলেন তাঁদের মধ্যে রয়েছেন কঙ্কনা সেনশর্মা, নন্দিতা দাশ, কিরণ রাও এবং জোয়া আখতার। এই সিদ্ধান্ত জানানোর পাশাপাশি‘মি টু’ আন্দোলনের প্রতি নিজেদের পূর্ণ সমর্থনের কথাও জানিয়েছেন তাঁরা। তাঁদের বক্তব্য, ‘‘মহিলা এবং চিত্রপরিচালক হিসেবে আমরা ‘মি টু’ আন্দোলন সমর্থন করি। যে সমস্ত মহিলা তাঁদের সঙ্গে হওয়া যৌন হেনস্থা ও নিগ্রহের ঘটনা সামনে এনেছেন আমরা তাঁদের পাশেই আছি। এই সব ঘৃণ্য ঘটনাগুলি সামনে এনে তাঁরা যে সাহস দেখাচ্ছেন আমরা তাকে সম্মান জানাই। এই সাহসই সমাজে পরিবর্তন আনতে পারে।’’ চিত্র পরিচালকদের তালিকায় রয়েছেন মেঘনা গুলজার, গৌরী শিন্ডে, রিমা কাগতি, সোনালি বসু, রুচি নারিন, নিত্যা মেহরা এবং অলঙ্কৃতা শ্রীবাস্তব। যাঁদের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা ও নিগ্রহ চালানোর অভিযোগ উঠছে, তাঁদের বয়কট করতে বলিউডের অন্যান্য চিত্রপরিচালককেও অনুরোধ করেছেন তাঁরা। ‘মি টু’ বিতর্কে সারা দেশ জুড়েই সামনে আসছে যৌন নিগ্রহ ও হেনস্থার ঘটনা। সাংবাদিক, রাজনীতিক, চিত্রপরিচালক, অভিনেতা তালিকায় বাদ নেই কেউই। ‘মি টু’ আন্দোলনের ঝড়ে বিপর্যস্ত বলিউড। শুরু হয়েছিল নানা পাটেকর দিয়ে। তারপর একে একে সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে অমিতাভ বচ্চন, রজত কপূর, সুভাষ কপূর, অলোক নাথ, সুভাষ ঘাই, কৈলাস খের, সাজিদ খান, কমেডি গ্রুপ এআইবি সহ আরও অনেকের নাম। বলিউডে যে কাজের জায়গায় মহিলারা চরম বৈষম্যের শিকার, তা সামনে এসেছে এই ‘মি টু’ আন্দোলনের মধ্যে দিয়ে।এদিকে ‘মি টু’ তে বিদ্ধ হয়ে বিপাকে কেন্দ্ৰীয় মন্ত্ৰী এম জে আকবর। মহিলা সাংবাদিক প্ৰিয়া রমানি আকবরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন। রামানির পর একাধিক মহিলা সাংবাদিক আকবরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন। এ বার অভিযোগকারিণী সংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ঠুকলেন এম জে আকবর। সোমবার দিল্লির একটি আদালতে মামলা দায়ের করেছেন তিনি।   

No comments

Powered by Blogger.