Header Ads

শিক্ষকদের অবদানের কথা স্মরণ করেন সমাজ কৰ্মী শঙ্কর দাস

দিশপুর প্ৰেস ক্লাবে শিক্ষকদের সম্বৰ্ধনা

গুয়াহাটিঃ আগামী ৫ সেপ্তম্বর শিক্ষক দিবস। এই দিবসের প্ৰাককালে আজ দিশপুর প্ৰেস ক্লাবে কৃতি শিক্ষকদের সম্বৰ্ধনা জানানো হয়। রাষ্ট্ৰপতি পুরস্কার প্ৰাপক মঙ্গলদৈ-এর শিক্ষক শশাঙ্ক হাজরিকাকে সম্বৰ্ধনা জানিয়ে রাজ্যের বিশিষ্ট সমাজ কৰ্মী শঙ্কর দাস শিক্ষকদের অবদানের কথা শ্ৰদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করে বলেন, দেশ গড়ার লক্ষ্যে শিক্ষকদের অবদান অনস্বীকাৰ্য। শিক্ষকরা মায়ের তুল্য, কিন্তু বৰ্তমান যুব সমাজের মধ্যে প্ৰকৃত শিক্ষা, নৈতিকতা, সততার বড় অভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। অসমীয়া ভাষা সংস্কৃতি আজ পরনিৰ্ভরশীল। হাজার বছরের প্ৰাচীন ভাষা সংস্কৃতি সম্পৰ্কে যুব সমাজের কোনও জ্ঞানই নেই, গবেষণাও নেই বলে তিনি ক্ষোভ প্ৰকাশ করেন। অসম সত্ৰসভার প্ৰধান কুসুম মহন্ত বৰ্তমান যুব সমাজের অবক্ষয়ের কথা তুলে ধরে বলেন, আজকাল সন্তানরা তাদের শিক্ষাগুরু, মা-বাবাকেও রাস্তায় ফেলে দিতে কাৰ্পন্য করে না। নীতি শিক্ষার বড় অভাব। মানুষ গড়া শিক্ষকদের অবদানের কথা বলে বৰ্তমান শিক্ষকদের সামাজিক অবক্ষয় প্ৰতিরোধ করার জন্য আহবান জানান। দিশপুর প্ৰেস ক্লাবের সভাপতি নরেন হাজরিকার পৌরোহিত্যে অনুষ্ঠিত সম্বৰ্ধনা সভায় দিশপুর প্ৰেস ক্লাবের প্ৰাক্তন সভাপতি তথা ওয়েভ পোর্টাল নয়া ঠাহর-এর সম্পাদক অমল গুপ্ত, সাহিত্যিক দীনেশ কাকতিকে সম্বৰ্ধনা জানানো হয়। এই উপলক্ষ্যে শিক্ষিকা মিনা তালুকদারের লেখা ‘বিশ্ববিশ্ৰুত মহান মনিষীদ্বয় ড০ সৰ্বপল্লী রাধা কৃষ্ণাণ এবং ড০ এপিজে আব্দুল কালাম' শীৰ্ষক গ্ৰন্থটি উন্মোচন করা হয়। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কুঞ্জ মোহন রায় সমগ্ৰ অনুষ্ঠানটি সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করেন।

No comments

Powered by Blogger.