Header Ads

ডিমা হাসাও জেলায়, এনআরসির দ্বিতীয় তথা চূড়ান্ত খসড়া থেকে ৫ শতাংশ মানুষের নাম বাদ পড়েছে

বিপ্লব দেবঃ ডিমা হাসাও জেলায় রাষ্ট্রীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসির) চূড়ান্ত খসড়া তালিকা থেকে প্রায় ১১ হাজার মানুষের নাম বাদ পড়েছে। অনেক উৎকন্ঠার পর সোমবার প্রকাশিত হওয়া এনআরসির দ্বিতীয় তথা চূড়ান্ত খসড়া থেকে ৫ শতাংশ মানুষের নাম বাদ পড়েছে বলে জানিয়েছেন ডিমা হাসাও জেলার জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া। সোমবার সকাল দশটায় পাহাড়ি জেলার ২৮ টি সেবা কেন্দ্রে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশ হওয়ার পরই মানুষের দীর্ঘ লাইন পড়ে জেলার ২৮ টি এনআরসি সেবা কেন্দ্রে এনআরসির চূড়ান্ত খসড়ায় নাম অন্তর্ভূক্তি হয়েছে কিনা তা দেখতে। তাছাড়া সকাল ১০ টায় এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশ হওয়ার পরই অনলাইনে অনেকে খসড়া তালিকায় নাম সন্নিবিষ্ট হয়েছে কিনা তা দেখে নেন। জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া বলেন ডিমা হাসাও জেলায় মোট ২ লক্ষ ৮ হাজার মানুষ এনআরসিতে নাম অন্তর্ভূক্তি করার জন্য আবেদন করেছিলেন। তবে এনআরসির প্রথম খসড়ায় জেলার  ১ লক্ষ ৬৯ হাজার ৫৮০ জনের নাম অন্তর্ভূক্ত হয়েছিল। প্রথম খসড়া থেকে বাদ পড়েছিল ৩৮ হাজার ৪২০ জনের নাম। তবে এনআরসির চূড়ান্ত খসড়ায় বাদ পড়া ৩৮ হাজার ৪২০ জন মানুষের মধ্যে ১৩ শতাংশ মানুষের নাম অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। ডিমা হাসাও জেলায় প্রায় ১ লক্ষ ৯৭ হাজার আবেদন কারীর নাম এনআরসির চূড়ান্ত খসড়ায় অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। জেলাশাসকের দেওয়া তথ্য অনুসারে শতকরা হিসেবে নথিভূক্তির সংখ্যা প্রায় ৯৫ শতাংশ। এদিকে ডিমা হাসাও জেলায় ঠিক কত মানুষের নাম এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া থেকে বাদ পড়েছে ডিপিএস মনীষা জিডুংয়ের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এনআরসির স্টেট কো-র্ডিনেটর প্রতীক হাজেলার নির্দেশ রয়েছে ঠিক কত জনের নাম এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া থেকে বাদ পড়েছে তা জানানো যাবে না। তবে জেলাশাসক অমিতাভ রাজখোয়া জানিয়েছেন পাহাড়ি জেলায় বাদ পরা লোকের সংখ্যা খুব বেশী নয়। প্রায় ১১ হাজারের মত লোক।

No comments

Powered by Blogger.