Header Ads

আন্তৰ্জাতিক ষড়যন্ত্ৰকে প্ৰতিহত করার সব প্ৰয়াস চলছেঃ এডিজিপি পল্লব ভট্টাচাৰ্য


আমেরিকা কেন্দ্ৰিক পোৰ্টাল ‘আওয়াজ'-এ বিশ্ব জুড়ে ভুল বাৰ্তা ছড়াচ্ছে

গুয়াহাটিঃ অসমে দীৰ্ঘ বছরের বিদেশী সমস্যা চিরতরে সমাধানের লক্ষ্যে দেশের মধ্যে অসমে সৰ্বপ্ৰথম সুপ্ৰিমকোৰ্টের নিৰ্দেশমৰ্মে এবং রেজিষ্টার জেনারাল অফ ইণ্ডিয়ার (আর জি আই) গাইড লাইন মেনে জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (এন আর সি) নবায়নের কাজ চূড়ান্ত পৰ্যায়ে পৌঁছিয়েছে। আগামী ৩০ জুলাই দ্বিতীয় চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্ৰকাশ পাবে। এই কাজে বাধা সৃষ্টি করার জন্য আন্তৰ্জাতিক পৰ্যায়ে বিভিন্ন লবিও মাঠে নেমেছে। আমেরিকার নিউইয়ৰ্ক ভিত্তিক ‘আওয়াজ' নামে এক নিউজ পোৰ্টাল ‘ইণ্ডিয়াঃ ষ্টপ ডিলিটিং মুসলিম' শীৰ্ষক এক জোরদার অভিযান শুরু করে, বিশ্ব জুড়ে ভুল বাৰ্ত ছড়াচ্ছে। পোৰ্টালটি অভিযোগ করেছে, অসমে এন আর সি নবায়নের নামে ৭০ লক্ষ মুসলিমের নাম বাদ পড়বে। ‘আওয়াজ' নামে পোৰ্টালটি রাষ্ট্ৰসংঘের হস্তক্ষেপও দাবি করেছে। এই ইস্যুর উপরে বিশ্ব জুড়ে মুসলিমদের মধ্যে এক আলোড়নের সৃষ্টি হয়েছে। ইতিমধ্যে ৯ লক্ষর বেশি সমৰ্থক আওয়াজের অভিযোগকে সমৰ্থন করে অসমের জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর সমন্বয়ক প্ৰতীক হাজেলার টুইটার হ্যাণ্ডেলে আক্ৰমণ হেনেছে। এই পোৰ্টালের বিরুদ্ধে অভিমত পোষণ করেছে মাত্ৰ ৯০ হাজার। প্ৰতি মিনিটে ফলোয়ার বা সমৰ্থকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। রাজ্য পুলিশের বিশেষ শাখার এডিজিপি পল্লব ভট্টাচাৰ্য আজ এই প্ৰতিবেদককে বলেন, ওয়েভ পোৰ্টালটি প্ৰচার বাস্তবের উপর প্ৰতিষ্ঠিত নয়, পোৰ্টালটি শুধু রাজনৈতিক বিষয়ের উপর খবর করেনা, পরিবেশ এবং অন্যান্য বিষয়ের উপরে খবর করে থাকে। অসমের এন আর সি সম্পৰ্কে পোৰ্টালটির কোনও ধারণাই নেই। তাই অন্য কারও সাহায্য নিয়ে রাজনৈতিক স্বাৰ্থে ভিত্তিহীন খবর পরিবেশন করে রাজ্যের মানুষের মধ্যে বিভ্ৰান্তি ছড়াতে চাইছে। এর পশ্চাদে রাজনৈতিক স্বাৰ্থ থাকতে পারে। এন আর সি প্ৰক্ৰিয়া যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন না হয়, তার জন্য আন্তৰ্জাতিক পৰ্যায়েও গভীর ষড়যন্ত্ৰ শুরু হয়েছে। পরিস্থিতিকে অগ্নিগৰ্ভ করার সব অপচেষ্টা শুরু হয়ছে? রাজ্যের এন আর সি নোডাল অফিসার প্ৰতীক হাজেলা ইতিমধ্যে পোৰ্টালটির অভিযোগ খণ্ডন করার জন্য স্পষ্টিকরণ দিয়েছে– যারা ‘আওয়াজ'এর অভিমতকে সমৰ্থন করছে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্ৰহণের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।পোৰ্টালের গুরুতর অভিযোগ সম্পৰ্কে রাজ্যপুলিশ কেন্দ্ৰীয় সরকারকে অবগত করেছে। আগামী ৩০ জুলাই যাতে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি হাতের বাইরে না যায়, সম্পূৰ্ণ নিয়ন্ত্ৰণে থাকে তা সুনিশ্চিত করা হবে। রাজ্যে প্ৰতিটি জেলায় অতিরিক্ত নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হবে। আন্তৰ্জাতিক হিন্দু পরিষদরে প্ৰধান প্ৰবীনভাই টোগারিয়া গত কাল রাজ্যে ৫০ লক্ষ বাংলাদেশী আছে বলে অভিযোগ করে তাদের পুৰ্নবাসনের জন্য বাংলাদেশে আক্ৰমণ করে জমি দখলের মতো কথা বলে ভয়ানক আপত্তিকর মন্তব্য করার পরেও তাকে কেন গ্ৰেফতার করা হল না? এই প্ৰেশ্নর জবাবে এ্যাডিশনাল ডিজিপি পল্লব ভট্টাচাৰ্য বলেন, আমরা টোগারিয়ার সভাসমিতির উপরে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলাম। ব্যক্তিগত মতামত দেওয়ার ক্ষেত্ৰে কোনও বাধা দেওয়া যায় না। বরাক উপত্যকায় ব্যাপক কয়লা দুৰ্নীতি সম্পৰ্কে বলেন, রাজ্যের মুখ্য সচিব টি ওয়াই দাসের সঙ্গে বরাকের ধৃত কয়লা মাফিয়া আব্দুল আহাদ চৌধুরীর সঙ্গে সম্পৰ্কের অভিযোগ সম্পৰ্কে স্বয়ং মুখ্যসচিবই রাজ্যে পুলিশ প্ৰধান কুলধর শইকিয়াকে তদন্ত করার জন্য নিৰ্দেশ দিয়েছেন। ৭ দিনের মধ্যে প্ৰতিবেদন দেওয়ার কথা। রাজ্যের বিশিষ্ট আইনজীবি তথা নাগরিক অধিকার সুরক্ষা সমিতির উপদেষ্টা হাফিজ রশিদ আহমেদ চৌধুরী আজ ক্ষোভ প্ৰকাশ করে বলেন, আন্তৰ্জাতিক পৰ্যায়ের নিউজ পোৰ্টাল অসমের আভ্যন্তরীণ ক্ষেত্ৰে হস্তক্ষেপ করে অবাস্তব অভিযোগ করেছে। আওয়াজ নামে পোৰ্টালটির বিরুদ্ধে পুলিশ কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্ৰহণ করছে না? প্ৰবীনভাই টোগারিয়ার ক্ষেত্ৰেও একই মন্তব্য করে বলেন, হিন্দুত্ববাদী নেতা অসমে সাম্প্ৰদায়িক সম্প্ৰীতি বিনষ্ট করার জন্য উসকানিমূলক বক্তব্য রাখলেন। তার বিরুদ্ধে উচিত ছিল ব্যবস্থা গ্ৰহণ করা। আইনজীবি চৌধুরীর মন্তব্য বিজেপি সরকারের মতাদৰ্শ অনুযায়ী প্ৰবীনভাই টোগারিয়া বক্তব্য রেখেছেন বলেই কি পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিল না? আইনজীবি হিসাবে চৌধুরী রাজ্যবাসীকে আস্বস্ত করে বলেন, এন আর সিতে নাম না উঠলেও দাবি ও আপত্তির মাধ্যমে নাম অভূক্তের অনেক সময় পাওয়া যাবে। প্ৰথমে এন আর সি সেবা কেন্দ্ৰ,  ট্ৰাইব্যুনাল তার পর হাইকোৰ্টে দ্বারস্ত হওয়ার সময় পাওয়া যাবে। এই সব দাবি আপত্তির জন্য দীৰ্ঘ সময়ের প্ৰয়োজন ২-৩ মাস তো লেগেই যাবে। তাই ভয় ও আতঙ্কগ্ৰস্ত হওয়ার কোনও কারণ নেই।

No comments

Powered by Blogger.