Header Ads

মোমের প্রলেপ দেওয়া বিষাক্ত আপেল দেদার বিক্রি হচ্ছে শহরে

দেবকিশোর চক্রবর্তী, কলকাতাঃ এখনও শুকোয়নি ভাগাড় কাণ্ডের ক্ষত।শহর কলকাতার ছোটো বড় হোটেল রেস্তোঁরাতে দেদার ব্যবহৃত হচ্ছিল। বিগত কয়েক বছর ধরেই বঙ্গের রাজধানী কলকাতায় প্যাকেটজাত করে বিক্রি হচ্ছিল ভাগাড়ের পঁচা মাংস। সম্প্রতি এই নক্কারজনক ব্যবসার কথা প্রকাশ্যে আসে। এই ঘটনায় স্বাভাবিকভাবে মুখ পোড়ে রাজ্যের। এই লজ্জ্বাজনক কাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই কলকাতার বাজারে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার হয়েছে ভেজাল আপেল।কলকাতার সবচেয়ে বড় ফলের বাজার মেছুয়া থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয় বিপুল পরিমান বিষাক্ত ফল।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভাগাড়ের মাংসের পর এবার প্রশাসনের নজরে এসেছে মোমের প্রলেপ দেওয়া আপেল। এর ফলে আমদের অজান্তেই দিনের পর দিন বিষ ঢুকে যাচ্ছে শরীরে। মোমের ক্ষতিকারক রাসায়নিক থেকে হজমের গোলমাল হতে পারে। এমনকি এর প্রভাবে রয়েছে সংক্রমণের সম্ভাবনা। রাসায়নিকের বদলে মধু, শশা, পেট্রোলিয়াম জেলির প্রলেপ দেওয়া হলে অবশ্য ক্ষতির আশংকা তেমন থাকতই না। উন্নত দেশে সেটাই রীতি।
শুধু মেছুয়া বাজার নয়,
দমদমে মোমের প্রলেপ দেওয়া আপেল বিক্রির খবরে আকাশ থেকে পড়েছেন অনেকেই। ভাবছেন, এমনটাও হতে পারে? না হওয়ার কিন্তু কোনও কারণই নেই। বরং উল্টোই নিয়ম। ফল তাজা রাখতে তার ওপর প্রলেপ দেওয়ার সুপারিশ স্বয়ং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার।তবে মোমের প্রলেপটা যে অস্বাস্থ্যকর, সেটা বলছেন শহরের বিশিষ্ট চিকিৎসকরাই। ফলে সাধারন ক্রেতারা রীতিমতো আতংকিত। আর, এর মধ্যে নতুন রসিকতা শুরু হয়েছে। ভেজালদাররা এবার আমিষ ছেড়ে নিরামিষাসিদের টার্গেট করল নাকি !

No comments

Powered by Blogger.