Header Ads

মহিলা পাচার চক্ৰের উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছেঃ অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরামের উদ্বেগ প্ৰকাশ


গুয়াহাটিঃ অসম তথা উত্তর পূৰ্বাঞ্চলে মহিলা শিশু পাচারের ঘটনা উদ্বেগজনকভাবে বেড়ে চলেছে। মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধজনিত ঘটনার সংখ্যাও বাড়ছে। অৰ্থনৈতিকভাবে স্বচ্ছল না হওয়ার ফলে তৃণমূল পৰ্যায়ের গরীব মানুষগুলি মহিলা শিশু পাচার চক্ৰে জড়িত অপরাধীদের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপই গ্ৰহণ করতে পারে না। ‘অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরাম' আজ এই ব্যাপারে উদ্বেগ প্ৰকাশ করে উত্তর পূৰ্বাঞ্চল তথা দেশের প্ৰতিটি জেলায় এমনকি মহকুমা পৰ্যায়ে মানবাধিকার আদালত স্থাপনের দাবি জানিয়েছে।‘অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরামে'র তথা ‘অল ইণ্ডিয়া বার এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সুপ্ৰীমকোৰ্টের বিশিষ্ট আইনজীবি জয়দ্বীপ মুখাৰ্জী আজ গুয়াহাটি দিশপুর প্ৰেস ক্লাবে এক সাংবাদিক সন্মেলন ডেকে মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধজনিত ঘটনায় উদ্বেগ প্ৰকাশ করে বলেন, ‘অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরাম' ১৯৯৭ সাল থেকে তৃণমূল পৰ্যায়ের গরিব মানুষদের আইনী সহয়তা প্ৰদানের  জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যােচ্ছ। আৰ্থিক দুরবস্থার জন্য গরিব মানুষগুলি আদালতের দরজা পৰ্যন্ত পৌঁছাতে পারেনা। তাই লিগাল ফোরাম কেন্দ্ৰীয় এবং রাজ্য সরকারগুলির কাছে দাবি জানিয়েছে প্ৰতিটি জেলায় মানবাধিকার আদালত স্থাপন করার জন্য, এবং সুপ্ৰীমকোৰ্টের অধীনে দেশের বিভিন্ন প্ৰান্তে বিশেষ করে অসমের গুয়াহাটিতে এক সাৰ্কিট বেঞ্চ স্থাপন করে গরীব মানুষগুলিকে বিনা পয়সায় আইনী সহয়তা দেওয়ার জন্য। ইণ্টান্যাসনাল কাউন্সিল অফ জুরির সদস্য তথা সুপ্ৰীমকোৰ্ট ও কলকাতা হাইকোৰ্টের আইনজীবি জয়দ্বীপ মুখাৰ্জী আজ বলেন, হিউম্যান রাইটস কমিশনগুলির আইনগত দায়বদ্ধতা নেই। তাই মানবাধিকার আদালত স্থাপনের প্ৰয়োজন আছে। যা আজ ৭০ বছরেও বাস্তবায়িত হলো না। ‘অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরাম' মহিলা শিশু পাচার চক্ৰ, উপজাতি মানুষদের উপরে অত্যাচার, বিদ্যালয়গুলিত মিড ডে মিল দশম শ্ৰেণী পৰ্যন্ত কাৰ্যকরী করা প্ৰভৃতি ব্যাপারে গরিব মানুষগুলির অধিকার সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করে যােচ্ছ। সাংবাদিক সন্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গুয়াহাটি হাইকোৰ্টের আইনজীবি দ্বীপাশ্ৰী সিনহা। আজ দিশপুর প্ৰেস ক্লাবে ‘অল ইণ্ডিয়া লিগাল এইড ফোরামের পক্ষ থেকে বিশিষ্ট সাংবাদিক অমল গুপ্তকে সম্বৰ্ধনা জানানো হয়।

No comments

Powered by Blogger.