Header Ads

কংগ্ৰেস পরিশ্ৰম করেনি জনগণকেও পরিশ্ৰম করতে শেখায়নি, সহজে অৰ্থ উপাৰ্জনের পথই দেখিয়েছেঃ সৰ্বানন্দ


গুয়াহাটিঃ মহিলাদের জন্য বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কৰ্মসূচী রূপায়নের জন্য রাজ্যে সরকার আন্তবরক প্ৰচেষ্টা চালােচ্ছ। সেই সব উন্নয়নমূলক কৰ্মসূচী সফল রূপায়নের জন্য মহিলাদের প্ৰতি সহযোগিতার আহবান জানান মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল। তিনি আজ বিশ্বনাথে মহিলা সমারোহে মহিলাদের আত্ম সহায়ক গোষ্ঠীকে আৰ্থিক সাহায্য প্ৰদান করে বলেন, বিগত কংগ্ৰেস সরকার কোনও পরিশ্ৰম করেনি, জনগণকে পরিশ্ৰমের পথ দেখায় নি, শুধু সহজ উপায়ে অৰ্থ কামানোর পথই দেখিয়েছে। তার ফলে রাজ্য অনেক পিছিয়ে গেছে। রাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের আন্দোলনের দিকে আঙুল তুলে বলেছেন, আম জনতার ভয় পাওয়ার কিছুই নেই, জনগণের আস্থা নিয়েই সরকার কাজ করছে। তাদের স্বাৰ্থ পরিপন্থী কাজ সরকার করবে না। এই সভায় অৰ্থমন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা বলেন, আত্ম সহায়ক গোষ্ঠীকে আৰ্থিক সাহায্য বৃদ্ধি করে ৫ লক্ষ টাকা করে করা হবে, ২ আক্টোবরের পর রাজ্যের প্ৰতিজন বৃদ্ধ-বৃদ্ধাকে সরকারী পেন্সন দেওয়া হবে। এ পি এল এবং বি পি এল উভয় পরিবারকে পেন্সন প্ৰদানের সিদ্ধান্ত হয়েছে। রাজ্যে ১০ অক্টোবরের পর একটিও কাঠের সেতু থাকবে না সবই ক্ৰংকিটে রূপান্তর করা হবে। ৪৫ দিনের মধ্যে রাজ্যের কৃষকদের ১০ হাজার টেক্টর দেওয়া হবে। বিশ্বনাথে ২০০ বিছানাযুক্ত হাসপাতাল এবং বেহালিতে একটি ড্যাণ্টাল কলেজ স্থাপনের  প্ৰতিশ্ৰুতিও দেন। মুখ্যমন্ত্ৰীর উপস্থিতিতে অৰ্থমন্ত্ৰী হিমন্ত বিশ্ব শৰ্মা বলেন, রাজ্যে ১৯টি ক্যান্সার হাসপাতাল স্থাপনের সিদ্ধান্তের পর থেকেই তার বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্ৰ শুরু হয়েছে। তাকে নানা অপবাদ দেওয়ার চেষ্টা হেচ্ছ। আমি কাউকে ভয় পাই না, রাজ্যের মানুষ আমার পাশে আছে, মা-বোনেদের আশিৰ্বাদ পাচ্ছি। প্ৰসঙ্গত লুইস বাৰ্জার, আয়কর বিভাগের কেলেঙ্কারিতে হিমন্তকে জড়িয়ে তার দিকে আঙুল তুলেছে কংগ্ৰেস, সেই প্ৰেক্ষিতেই আজ হিমন্তের স্পষ্টীকরণ বলে মনে করা হচ্ছে। আজকের এই মহিলা সমারোহে উপস্থিত ছিলেন, গ্ৰামোন্নয়ন ও পঞ্চায়েতমন্ত্ৰী নব কুমার দলে, শ্ৰমমন্ত্ৰী পল্লব লোচন দাস, সাংসদ আর পি শৰ্মা, বিজেপি সভাপতি রঞ্জিত কুমার দাস, বিধায়ক বৃন্দাবন গোস্বামী, বিধায়ক অশোক সিংহল প্ৰমুখ।

No comments

Powered by Blogger.