Header Ads

ভুলবশতঃ কোনও মানুষের নাম বাদ পড়লেও নিজেদের নাম সংশোধনের সুযোগ দেওয়া হবে --মুখ্যমন্ত্ৰী

গুয়াহাটিঃ জাতীয় নাগবরিকপঞ্জি চূড়ান্ত খসড়া তালিকা পাওয়ার কথা আগামী ৩০শে জুন, কিন্তু এন আর সির সমন্বয় প্ৰতীক হাজেলা সাম্প্ৰতিক বন্যার জন্য সময়সীমার বৃদ্ধির আৰ্জি জানিয়েছেন সুপ্ৰীমকোৰ্টের কাছে। সুপ্ৰীমকোটের ডিভিশন বেঞ্চ আগামী ৩০-শে জুন সময়সীমার বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। দিন যতই এগিয়ে আসছে রাজ্যের ধৰ্মীয় এবং ভাষিক সংখ্যালঘূ জনগোষ্ঠীর মধ্যে ভয় ও আতঙ্কের সৃষ্টি হেচ্ছ। রাষ্ট্ৰসংঘের মানবধিকার সংস্থা পৰ্যন্ত ভারত সরকারেকে প্ৰতিবেদন পাঠিয়ে উদ্বেগ প্ৰকাশ করে বলেছে, প্ৰকৃত ভারতীয় নাগবরিক বাঙালি মুসলিমদের বিদেশী সাজিয়ে, ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠিয়ে মানবাধিকার লঙঘনের চেষ্টা চালানো হেয়েছে। প্ৰশ্ন তুলেছে এন আর সি থেকে বাদ দেওয়া সংখ্যালঘূ মানুষগুলি রাষ্ট্ৰহীন নাগরিকে পরিণত হবে। তারা কোথায় যাবে· জাতীয় মানবাধিকার কমিশন থেকে পদত্যাগ করা দেশের বিশিষ্ট সমাজ কৰ্মী হর্ষ মন্দের আজ প্ৰায় একই প্ৰশ্ন তুলেছেন। বরাকের প্ৰাক্তন মন্ত্ৰী সিদ্দেক আহমেদও আজ সাংবাদিকদের কাছে এন আর সি সম্পৰ্কে নানা অভিযোগ করে বলেন, শুধু বরাক উপত্যকায় প্ৰায় ১ লক্ষ বৈধ নাগরিকের নাম বাদ পড়বে। তিনি বলেন, সুপ্ৰীমকোৰ্টকে উপেক্ষা কবর এন আর সি সমন্বয় প্ৰতীক হাজেলা একটার পর একটা নিৰ্দেশ দিয়ে রাজ্যের মানুষকে বিভ্ৰান্ত করছে। গত ১ এবং ২ মে' নতুন নিৰ্দেশ জারি করে হাজেলা জানিয়েছেন, জন্ম তারিখ পঞ্চায়েত নথি-পত্ৰ এবং অন্যান্য নথি-পত্ৰ গ্ৰহণ করা হবে না। বরাকের বিশিষ্ট কংগ্ৰেস নেতা সিদ্দেক আহমেদ আশঙ্খা প্ৰকাশ করেন, সারা রাজ্যে প্ৰায় ৩০-৩৫ লক্ষ সংখ্যালঘু মানুষের নাম এন আর সি তালিকা থেকে বাদ পড়বে। তার অভিযোগ এন আর সি নিয়ে এক গভীর চক্ৰান্ত চলছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনোয়াল আজ হঠাৎ-ই রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল অধ্যাপক জগদীশ মুখীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বরাক উপত্যকার বন্যা উদ্ভূত পরিস্থিতি ছাড়াও এন আর সি নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা করেন। এন আর সি তালিকা প্ৰকাশের পর রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হতে পারে আশঙ্খা করে কেন্দ্ৰীয় বাহিনীর মোতায়েন সম্পৰ্কেও আলোচনা করেন। পরে মুখ্যমন্ত্ৰী সাংবাদিকদের বলেন, এন আর সি কত্তৃপক্ষ নিখুঁতভাবে নাগরিকত্ব নবায়নের কাজ করছে। ভারতীয় নাগরিকদের নাম বাদ পড়বে না। যদি ভুলবশত কোনও মানুষের নাম বাদ পরে তবে দাবি আপত্তির মাধ্যেমে নিজেদের নাম সংশোধনের সুযোগ পাবে। অহেতুক আতঙ্কগ্ৰস্থ হওয়ার কোনও কারণ নেই।

No comments

Powered by Blogger.